1. nabadhara@gmail.com : Nabadhara : Nabadhara ADMIN
  2. bayzidnews@gmail.com : Bayzid Saad : Bayzid Saad
  3. bayzid.bd255@gmail.com : Bayzid Saad : Bayzid Saad
  4. mehadi.news@gmail.com : MEHADI HASAN : MEHADI HASAN
  5. jmitsolution24@gmail.com : support :
  6. mejbasupto@gmail.com : Mejba Rahman : Mejba Rahman
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০৪:২৭ অপরাহ্ন

নড়াইলে জমে উঠেছে নৌকার হাট

Reporter Name
  • প্রকাশিতঃ সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৬৪২ জন নিউজটি পড়েছেন।

শরিফুল ইসলাম, স্টাফ রিপোর্টার নড়াইলঃ

বর্ষা মৌসুম শুরু হলেই জমে ওঠে নড়াইল সদর উপজেলার বাসগ্রাম ইউনিয়নের ডহর রামসিধি গ্রামের নৌকার হাট। গ্রামের প্রতিটি ঘরেই তৈরি হচ্ছে বিভিন্ন প্রকারের নৌকা। প্রতি বুধাবার খুব ভোরে এখানে নৌকার হাট বসে। প্রায় ৭০ বছরের পুরানো ঐতিহ্যবাহি এ হাটে দূর-দূরাস্ত থেকে নৌকা কিনতে ছুটে আসেন ব্যবসায়ীসহ ক্রেতারা। ভোর ৬টা থেকে ১০টা পর্যন্ত চলে কেনাবেচা। প্রতি হাটে ৭ থেকে ৮ লাখ টাকার নৌকা কেনাবেচা হয়ে থাকে।
সরেজমিন দেখা গেছে,জেলা শহর থেকে প্রায় ১৫ কিলোমিটার দূরে সংখ্যালঘু অধ্যুষিত রামসিধি গ্রাম। গ্রামে প্রায় দুই হাজার কৃষি পরিবার শুষ্ক মৌসুমে কৃষি কাজের পাশাপাশি নৌকা তৈরি করে থাকেন। পুরুষদের পাশাপাশি গ্রামের মহিলারাও এ কাজে পারদর্শী। ফলে অভাবকে তাড়িয়ে এসব পরিবার এখন স্বাবলম্বী হয়ে উঠেছে। পাশের জেলার মানুষ এদের কাছ থেকে অভিজ্ঞতা নিয়ে নিজের পায়ে দাঁড়াতে চেষ্টা করছেন। বাসগ্রাম-মীরাপাড়া সড়কের ডহর রামসিধি গ্রামের প্রায় আধা কিলোমিটার গ্রাম্য রাস্তার দুইপাশের জলাশয়সহ রাস্তার ঢালে সারিবদ্ধভাবে কয়েক’শ নৌকা রেখে কেনাবেচা চলে।
ছবিদ মিনা,ইদ্রিস শেখসহ স্থানীয় কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে,দক্ষিণাঞ্চলের নৌকা কেনাবেচার হাট এটি। খুলনার ফুলতলা,তেরখাদা,রূপসা,ডুমুরিয়া,দিঘলিয়া,যশোর,অভয়নগর,বাঘারপাড়া,মাগুরার শালিখা,মহম্মদপুর,ফরিদপুরের ,বোয়ালমারী,কাশিয়ানী,মকসুদপুরসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে এই হাটে নৌকা কিনতে আসেন। নৌকা কিনতে আসা মানুষের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে,বর্ষা মৌসুমে এ সকল জেলার গ্রামাঞ্চলে চলাচলের জন্য নৌকাই একমাত্র বাহন। নৌকায় প্রতিদিন কৃষকরা জমি থেকে শত শত মণ ধানসহ অন্যান্য ফসল আনানেওয়া,খাল-বিলে চাই অথবা ঘুনি,দোয়ার পেতে মাছ ধরা,শাপলা,শামুক,ঝিনুক,এবং গরুর খাবার ঘাস কাটার জন্য নৌকা আপরিহার্য। তাই রামসিধি নৌকার হাট এখন ক্রেতা বিক্রেতাদের সমাগমে ভরে উঠেছে। নৌকা কারিগর নিরাপদ সরকার (৭৪) বলেন,হাটে তিনি ৫টি নৌকা বিক্রির জন্য নিয়ে এসেছেন। একটি নৌকা বিক্রি হবে ৫ থেকে ৬ হাজার টাকা। আবার কোন নৌকা ৬ হাজার থেকে ৮ হাজার টাকা দরে বিক্রি হয়ে থাকে। তিনি বলেন,৫৫ বছর ধরে নৌকা তৈরি করে এ হাটে কেনাবেচা করছি। পুয়ো গাছের কাঠ দিয়েই সাধারণত নৌকাগুলো তৈরি করা হয়ে থাকে। এছাড়া জাম,কড়াই,শিশু,রেইনট্রি কাঠ দিয়েও তৈরি করা হয় নৌকা। মাঝারি আকারের (আট হাত লম্বা) একটি নৌকা বানাতে খরচ হয় প্রায় ৪ থেকে সাড়ে ৪ হাজার টাকা। তিনি দাবি করেন,৪/৫ জন শ্রমিক কাজ করলে প্রতিদিন একটি নৌকা তৈরি করা সম্ভব। কৃষি কাজের পাশাপাশি বছরের ৩ মাস নৌকা তৈরির কাজ করা হয়।

কালিয়া উপজেলার জামরিলডাঙ্গা গ্রামের নৌকা ব্যবসায়ী হান্নান শেখ (৬১) জানান,প্রতি হাটে এখান থেকে ১৫/২০টি নৌকা কিনে খুলনার রূপসা,ডুমুরিয়া,দিঘলিয়া,তেরখাদাসহ বিভিন্ন এলাকায় নিয়ে বিক্রি করে থাকি। ২০ বছর ধরে তিনি এ ব্যবসা করে আসছেন। কাশিয়ানী উপজেলার কাশিয়ানী গ্রামের ব্যবসায়ী কাশেম খান বলেন,প্রতি বছর তিনি এখান থেকে ৭ থেকে ১০টি নৌকা কিনে অন্যত্র বিক্রি করেন। নসিমন-করিমনে করে নৌকাগুলো নিয়ে যাওয়া হয়। প্রতিটি নৌকায় এক থেকে দেড় হাজার টাকা লাভ থাকে। তিনি বলেন,এবার বর্ষা মৌসুম দীর্ঘস্থায়ী হওয়ায় ৩ থেকে ৪ চালান নৌকা কিনেছি।

হাটের ইজারাদার হরেকৃঞ্চ নবধারা কে বলেন বিশ্বাস (৬২) বলেন,আগে এ হাটে ২০০ থেকে ২৫০টি নৌকা কেনাবেচা হতো। ব্যাপারীদের কাছ থেকে নৌকা প্রতি ৪০ থেকে ৫০ টাকা এবং ক্রেতাদের কাছ থেকে ৩০ টাকা করে নেওয়া হয়ে থাকে। যার সমস্ত টাকা ব্যয় করা হয় এলাকার মসজিদ,মন্দিরসহ ধর্মীয় কাজে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved সর্বস্বত্বঃ দেশ হাসান
Design & Developed By : JM IT SOLUTION